Download Free FREE High-quality Joomla! Designs • Premium Joomla 3 Templates BIGtheme.net
Home / খেলা / বাদ পড়া ক্রিকেটারদের পাশে দাঁড়ালেন মাশরাফি

বাদ পড়া ক্রিকেটারদের পাশে দাঁড়ালেন মাশরাফি

স্পোর্টস ডেস্ক: বুধবার বিসিবির পরিচালনা পর্ষদের মিটিং শেষে নতুন মেয়াদের জন্য কেন্দ্রীয় চুক্তিভুক্ত খেলোয়াড়দের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। আগের চুক্তিতে ১৬জন ক্রিকেটার থাকলেও তা কমিয়ে করা হয় ১০ জনের তালিকা। তাছাড়া তালিকা থেকে বাদ পড়েন ছয় ক্রিকেটার। আর এই বাদ পড়া ক্রিকেটারদের পাশেই দাড়ালেন টাইগার কাপ্তান মাশরাফি বিন মুর্তাজা। তাছাড়া সৌম্য-সাব্বিরদের আবারো ফর্ম ফিরে পেতে সিনিয়র ক্রিকেটাররা সব রকমের সাহায্য করবেন বলেও তিনি জানান।

বাদ পড়া ক্রিকেটাররা হলেন- সৌম্য সরকার, সাব্বির রহমান, ইমরুল কায়েস, তাসকিন আহমেদ, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত এবং রাব্বি।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর একটি হোটেলে আর্থিক প্রতিষ্ঠান আইপিডিসির সঙ্গে নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশনের এক চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে চুক্তি থেকে ছয় ক্রিকেটারের বাদ পড়ার বিষয়ে জানতে চাওয়া হয়।

এসময় মাশরাফি নিজের ভাবনার কথা তুলে ধরেন, ‘প্রথমত, যত দিন ধরে খেলছি, বেতনের ভেতর আছি কি নেই, এসব নিয়ে ভাবিনি। আমার কাছে এটা কখনোই পরিষ্কার নয়। আমার সব সময়ই প্যাশন ছিল ক্রিকেট খেলা। ওই প্যাশন নিয়ে ক্রিকেট খেলছি।’

একজন ক্রিকেটারের জন্য চুক্তি বা বেতনের গুরুত্বের কথা মনে করিয়ে দেন মাশরাফি।

‘বেতন একজন খেলোয়াড়ের জন্য অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ। দেশের বেশির ভাগ খেলোয়াড় এসেছে মধ্যবিত্ত পরিবার থেকে। পরিবারের ওপর বেতন বা তার খেলার বিরাট প্রভাব থাকে। তবে সিদ্ধান্তটা বোর্ডের। ক’জনকে বেতন দেবে না দেবে এটা তাদের সিদ্ধান্ত। একটা খেলোয়াড়ের জন্য বেতন (চুক্তিতে থাকা) গুরুত্বপূর্ণ। একই সময়ে তাকে ততটুকু আবেগ দিয়েও খেলতে হবে। আমার বিশ্বাস, সবাই সেভাবে খেলছে। পারফরম্যান্স সব সময়ই একই গ্রাফে চলে না। কারও কখনো ভালো যায়, কারও কখনো খারাপ। বেতনের বিষয়টা নির্ভর করে পারফরম্যান্সের ওপর, এটাও সত্য।’

সৌম্য, ইমরুলদের এই দুর্দিনে তাদের পাশে অবিচল থাকরও কথাও জানান টাইগার দলপতি।

‘তারা বাংলাদেশ দলের সত্যিকারের ভবিষ্যৎ, তাদের সমর্থন করা আমাদের প্রত্যেকের দায়িত্ব। আমার জায়গা থেকে আমি পিছপা হব না। যত প্রকার সমর্থন দেওয়ার তাদের দেব। জানি, বাংলাদেশের এত বেশি বিকল্প খেলোয়াড় নেই। ধারাবাহিকতা বাড়িয়ে যদি তারা ফর্মে ফিরে আসে, লম্বা সময় ধরে তারা বাংলাদেশকে সেবা দিতে পারবে। একসময় সাকিব-তামিম বা আমরা এমনই ছিলাম। বলতে পারেন, ওই সময় প্রতিদ্বন্দ্বিতা এতটা ছিল না বলে আমরা টিকে গেছি।’

বর্তমান সময়ে খেলাটা অনেক কঠিন হয়ে পড়েছে উল্লেখ করে ম্যাশ বলেন, ‘তাদের কাছে প্রত্যাশাটা অনেক। একটু খারাপ করলেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম সোচ্চার হয়ে ওঠে। ক্রিকেট খেলাটা এখন অনেক কঠিন হয়ে গেছে। ছোটখাটো বিষয়ে অনেক বেশি সমালোচনা হয়। ২২-২৩ বছর বয়সে এত সমালোচনা নিয়ে ধারাবাহিক ভালো খেলা অনেক চ্যালেঞ্জিং। কারও বেড়ে ওঠাও তো এত পেশাদারির মধ্যে হয় না। আমরা সিনিয়ররা যারা আছি, তাদের সহযোগিতা করব। তাদেরও চেষ্টা করতে হবে, তারা যেন নিজেদের সেরা ফর্মে আসতে পারে।’

বিসিবির চুক্তি থেকে একসঙ্গে ছয় ক্রিকেটারের বাদ পড়া নিয়েই আলোচনা চলছে গণমাধ্যমগুলোতে। অনেকেই এর সমালোচনা করেছেন। তাদের বাদ পড়ার ব্যাখ্যা হিসেবে বিসিবির মিডিয়া কমিটির প্রধান জালাল ইউনুস বুধবার বলেছেন, এই ক্রিকেটারদের পারফরম্যান্স চুক্তিতে রাখার জন্য যথেষ্ট নয়। তবে কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে বাদ পড়ার মানে জাতীয় দল থেকে বাদ পড়া নয়। সাব্বির, তাসকিন, সৌম্যরা চুক্তির বাইরে থাকলেও আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলতে পারবেন।

Comments

comments