Download Free FREE High-quality Joomla! Designs • Premium Joomla 3 Templates BIGtheme.net
Home / স্বাস্থ্য / ডায়াবেটিস রোগীর জন্য বাঁধাকপি

ডায়াবেটিস রোগীর জন্য বাঁধাকপি

স্বাস্থ্য ডেস্ক: বাঁধাকপি একটি সুস্বাদু শীতকালীন সবজি। আমাদের দেশের ঘরে ঘরে একটি জনপ্রিয় খাবার এই বাঁধাকপি। এটি কাঁচা এবং রান্না দুইভাবেই খাওয়া যায়। স্বাদে ও গুণে অতুলনীয় এই সবজিটি বিশেষ পদ্ধতিতে চাষ করার কারণে মোটামুটি সারা বছরই পাওয়া যায়। তবে শীতকালীন বাঁধাকপির স্বাদ তুলনামূলক ভাবে অন্য সময়ের চাইতে বেশি। অনেকেই আবার শীতে দুধ লাউয়ের মত বাঁধাকপির কচি পাতা অার দুধ দিয়ে পায়েস রান্না করে খান। কিছুটা শুধু স্বাদই নয় বাঁধাকপির রয়েছে রোগ প্রতিরোধ ওজন কমানোর মত গুরুত্বপূর্ণ সব উপাদান।

বাধাকপির পুষ্টিগুণ

পুষ্টি বিজ্ঞানীদের মতে, প্রতি ১০০ গ্রাম বাধাকপিতে রয়েছে ১দশমিক ৩ গ্রাম প্রোটিন, ৪ দশমিক ৭ গ্রাম শর্করা, ০ দশমিক ০৬ মিলিগ্রাম ভিটামিন বি১, ০ দশমিক ০৫ মিলিগ্রাম ভিটামিন বি২ ও ৬০ মিলিগ্রাম ভিটামিন সি। তাছাড়া প্রতি ১০০ গ্রাম বাধাকপিতে ৩১ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম, ০ দশমিক ৮ মিলিগ্রাম লৌহ, ৬০০ ম্যাক্রোগ্রাম ক্যারোটিন ও ২৬ কিলো ক্যালরি খাদ্যশক্তি থাকে।

এছাড়াও বাঁধাকপির আরো অন্যান্য পুষ্টিগুণ সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক-

১. বাঁধাকপি

আমাদের দেশে বাঁধাকপি ভাজি একটি জনপ্রিয় খাবার। বিশেষ করে মাংসের সাথে পাতাকপির ঝোল বেশ উপাদেয় খাবার। সালাদে শশা, গাজর, টমেটোর সাথে বাঁধাকপি মেশালে অনেক মজা হয়। বাঁধাকপি অনেক কম কার্বন যুক্ত । এই সবজিটি ডায়াবেটিসের ঝুঁকি হ্রাস করে এবং রক্তে শর্করার পরিমাণ নিয়ন্ত্রনে রাখে।

২. পূরণ হয় ভিটামিনের অভাব

শরীরে ভিটামিনের অভাব দূর করতে নিয়মিত মাল্টি ভিটামিন ট্যাবলেট খান অনেকেই। কিন্তু, নিয়মিত বাঁধাকপি খেলে আপনার আর মাল্টি ভিটামিন খাওয়ার খেতে হবে না। কারণ বাঁধাকপিতে শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় সব ভিটামিনই আছে। বাঁধাকপিতে আছে রিবোফ্ল্যাবিন, প্যান্টোথেনিক এসিড এবং থিয়ামিন ।

৩. হাড় মজবুত করে

বাঁধাকপিতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি ও কে আছে। ভিটামিন সি হাড়ের বিভিন্ন সমস্যা দূর করে। এছাড়াও বাঁধাকপিতে বিদ্যমান ভিটামিন কে হারকে মজবুত রাখে। নিয়মিত বাঁধাকপি খেলে বয়সজনিত হাড়ের সমস্যা মুক্ত থাকা যায়।

৪. ওজন কমাতে সহায়ক

বাঁধাকপিতে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার আছে। যারা ওজন কমাতে চাইছেন তারা প্রতিদিনের সালাদের রাখুন বাঁধাকপি। এতে অতিরিক্ত ক্যালোরি বাড়ে না বললেই চলে। তাই ওজন কমাতে চাইলে নিয়মিত খাবার তালিকায় প্রচুর পরিমাণে বাঁধাকপি রাখুন।

৫. আলসার প্রতিরোধে বাঁধাকপি

যারা আলসারের সমস্যায় ভুগছেন তাঁরা নিয়মিত বাঁধাকপি খাওয়ার অভ্যাস করুন। কারণ গবেষণায় দেখা গেছে, বাঁধাকপি আলসার প্রতিরোধ করে। পাকস্থলির আলসারও পেপটিক আলসার প্রতিরোধে বাঁধাকপির জুড়ি নেই। স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সাম্প্রতিক একটি গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে বাঁধাকপির রস আলসারের জন্য সবচেয়ে উপকারী প্রাকৃতিক ওষুধ।

৬. রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়

বাঁধাকপি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সহায়তা করে। আপনি যদি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে নিজেকে সুস্থ্য রাখতে চান তাহলে প্রতিদিনের খাবার তালিকায় বাঁধাকপি যোগ করুন।

গবেষণায় দেখা গেছে, যারা নিয়মিত বাঁধাকপি খান তাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা অন্যদের তুলনায় অনেক বেশি। বাঁধাকপিতে বিদ্যমান ভিটামিন সি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সহায়তা করে।

৭. ত্বক ভালো রাখে

ত্বক ভালো রাখতে ভিটামিন ই এর জুড়ি নেই। আর বাঁধাকপিতে আছে প্রচুর ভিটামিন ই। এছাড়াও নিয়মিত বাঁধাকপি খেলে ত্বকে সহজে বয়সের ছাপ পড়ে না। তাই যারা ত্বক ভালো রাখতে চান তাঁরা বেশি করে বাঁধাকপি খান।

এছাড়াও প্রতিদিন বাঁধাকপির পাতা ৫০ গ্রাম খেলে আপনার মাথায় চুল গজাবে ৷ বাধাকপির রস খেলে ঘা সেরে যায়। এক গ্লাস দই এর ঘোলের মধ্যে এক কাপ বাঁধাকপির রস, এক চতুর্থাংশ পালং শাকের রস মিশিয়ে প্রতিদিন দু বার পান করলে খুব অল্প দিনের মধ্যে আপনার কোলাইটিস সংক্রান্ত সমস্যা দূর হয়ে যাবে।

Comments

comments