Download Free FREE High-quality Joomla! Designs • Premium Joomla 3 Templates BIGtheme.net
Home / স্বাস্থ্য / মৃত্যুর পরও যে অঙ্গটি অনেকক্ষণ সচল থাকে

মৃত্যুর পরও যে অঙ্গটি অনেকক্ষণ সচল থাকে

স্বাস্থ্য ডেস্ক: আমেরিকার একদল গবেষক দাবি করেছেন যে, মৃত্যুর পরও মানুষের মস্তিষ্ক সচল থাকে বলে। তাদের দাবি অনুসারে, মানুষের মৃত্যুর পরও অন্তত ১০ মিনিট পর্যন্ত মস্তিষ্ক কাজ করতে থাকে।

আমেরিকার নিউইয়র্ক ইউনিভার্সিটি ল্যাঙ্গুন স্কুল অফ মেডিসিনের একদল গবেষক ডাক্তার সাম পারনিয়ার নেতৃত্বে এই বিষয়টি সম্পর্কে প্রমাণ পাওয়া যায়।

গবেষকরা জানান, চিকিৎসকরা হৃদস্পন্দন দেখেই রোগীকে মৃত ঘোষণা করেন। কিন্তু এরপরও কয়েকটি পরীক্ষায় দেখা গেছে, ওই মৃত মানুষের মস্তিষ্ক ঠিকই কাজ করছে। গভীর ঘুমের সময় মস্তিষ্ক যেমন কাজ করে ঠিক তেমনটাই করছিল।

নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) গবেষকরা দেখতে পান, এক ব্যক্তি মারা যাওয়ার পরও তার মস্তিষ্ক অনেকক্ষণ ধরে সচল ছিল।

এই গবেষণাপত্রটি চিকিৎসা বিজ্ঞানে নতুন দিগন্ত খুলে দিতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। নিউইয়র্ক ইউনিভার্সিটি ল্যাঙ্গুন স্কুল অফ মেডিসিনের একদল গবেষক প্রকাশিত এই গবেষণায় বলা হয়, রক্তচাপ ও হৃদস্পন্দন থেমে গেলেও মস্তিষ্ক তরঙ্গ চলতে থাকে।

গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রতি চারজনের একজন মৃত ব্যক্তির মস্তিষ্ক সচল থাকতে দেখা গেছে। প্রতিটি মস্তিষ্ক আলাদাভাবে কাজ করতে থাকে। এতে মৃত্যুর পরে কী হয় সেটা নিয়ে আরও রহস্য তৈরি হয়েছে বলে মনে করছেন বিজ্ঞানীরা।

চিকিৎসকরা এখনও জানেন না মস্তিষ্কের এই অদ্ভূত আচরণ কেন ঘটে। এটি নিয়ে এখনই কিছু বলতে চান না তারা। কারিগরি কোনও ত্রুটির কারণে এমনটা হয়নি বলেও জানান তারা।

গবেষকরা আগে মনে করতেন মৃত্যুর এক মিনিটের মধ্যেই মস্তিষ্ক কাজ করা বন্ধ করে দেয়। তবে ওই গবেষণা চালানো হয়েছিল ইঁদুরের ওপর। মানুষের ক্ষেত্রে এমন কোনও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়নি।

এর আগে গত বছর প্রকাশিত দুটি পৃথক গবেষণায় দাবি করা হয়েছিল, মৃত্যুর পর বেশ কয়েকটি অঙ্গ সচল থাকে। আবার এবছর মে মাসে ওয়েস্টার্ন ওন্টারিও বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টাডি পেপারেও এই বিষয়টি প্রকাশ করেছেন তারা।

বেশ কয়েকজন রোগীর ক্ষেত্রেই তারা দেখেছেন যে ডাক্তারি শাস্ত্রের মতে তাদের মৃত হিসেবে চিহ্নিত করার পরও তাদের মস্তিষ্ক কাজ করছিল। পালস বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর মস্তিষ্ক যে ক্রিয়াশীল তার একাধিক প্রমাণ তারা পেয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

Comments

comments