Download Free FREE High-quality Joomla! Designs • Premium Joomla 3 Templates BIGtheme.net
Home / জাতীয় / মিজারুল কায়েসকে শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা

মিজারুল কায়েসকে শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা

অনলাইন ডেস্ক: সাবেক পররাষ্ট্র সচিব ও ব্রাজিলে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. মিজারুল কায়েসের মরদেহ শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আনা হয়েছে। সোমবার সকাল ১০টা ২০ মিনিটে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে মরদেহ আনা হয়।

সকাল সাড়ে ১০টায় প্রথমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন লেফটেন্যান্ট কর্নেল সাইফুল্লাহ। এরপর একে একে বিভিন্ন সংগঠন ও ব্যক্তির পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হচ্ছে। কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে মিজারুল কায়েসের মরদেহের পাশে তার স্ত্রী নাঈমা চৌধুরী, তার দুই মেয়ে মাধুরী ও মানসী এবং তার বড় ভাই ইমরুল কায়েসসহ পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত রয়েছেন।

এ কূটনীতিকের প্রতি সব শ্রেণি-পেশার মানুষ শেষ শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন দুপুর ১২টা পর্যন্ত। এরআগে সকাল সকাল ৮টা ৪৩ মিনিটে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় প্রাঙ্গণে তার দ্বিতীয় জানাজা সম্পন্ন হয়। বাংলাদেশে এটি তার প্রথম জানাজা।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাহমুদ আলী, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম, অর্থ প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নান, পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক, সাবেক ও বর্তমান রাষ্টদূতরা ছাড়াও তার সহকর্মীরা জানাজায় অংশ নেন। এ সময় মন্ত্রণালয় প্রাঙ্গণে বাংলাদেশে নিযুক্ত ব্রাজিলের রাষ্টদূত ওয়ানজা ক্যামপস ডি নোব্রেগা উপস্থিত ছিলেন।

শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে তার মরদেহ নেয়া হবে গুলশান আজাদ মসজিদে। সেখানে বাদআসর তৃতীয় জানাজা সম্পন্ন হবে। তৃতীয় জানাজার পর মরদেহ মর্গে নেয়া হবে। পরদিন মঙ্গলবার হেলিকপ্টারে নিজ গ্রাম কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় নেয়া হবে মরদেহ। সেখানে জানাজা শেষে দুপুর ১২টার কায়েসের মরদেহ ঢাকায় আনা হবে। সবশেষে বাদআসর বনানী কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে।

এরআগে ১২ মার্চ শনিবার রাত ২টায় ব্রাজিলের বাংলাদেশ দূতাবাসে তার প্রথম জানাজা সম্পন্ন হয়। ব্রাজিলের প্রথা অনুযায়ী কর্মরত রাষ্ট্রদূতের মৃত্যু হলে সামরিক বাহিনীর সম্মান জানানো হয়। সেই প্রথা অনুযায়ী সে দেশের বিমান ঘাঁটিতে মিজারুল কায়েসের মরদেহে সামরিক সম্মান জানানো হয়। রোববার রাত ১২টা ১ মিনিটে কাতার এয়ারওয়েজের একটি ফ্লাইটে তার মরদেহ ঢাকায় এসে পৌঁছায়।

গত ১১ মার্চ শুক্রবার ব্রাজিলের রাজধানী ব্রাসিলিয়ার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন মো. মিজারুল কায়েস। বেশ কিছুদিন ধরে তিনি শ্বাসকষ্ট আর কিডনির জটিলতায় ভুগছিলেন।

Comments

comments